মঙ্গলবার, ১ ডিসেম্বর ২০২০

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে ভিডিও কনফারেন্স সিস্টেম দিচ্ছে হুয়াওয়ে

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়কে ভিডিও কনফারেন্স সিস্টেম এবং এআই সমাধান দিচ্ছে হুয়াওয়ে টেকনোলজিস (বাংলাদেশ) লিমিটেড। তাদের দাবি, এ উন্নত প্রযুক্তি কাজে লাগিয়ে সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলোর মধ্যে সমন্বয়ের পাশাপাশি দূরবর্তী যোগাযোগ এবং ‘কোভিড-১৯’ শনাক্তে কার্যকর শনাক্তকরণ প্রক্রিয়া পরিচালনা করা যাবে। গতকাল বুধবার হুয়াওয়ে এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

হুয়াওয়ে বলছে, তাদের ভিডিও কনফারেন্স সিস্টেমটি ফোর-কে ভিডিও প্রযুক্তির ওপর ভিত্তি করে বিভিন্ন ক্ষেত্র ও প্রেক্ষাপটে বুদ্ধিবৃত্তিক সমাধান দিতে সক্ষম। এর সাহায্যে করোনাভাইরাসের মতো মহামারির প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রম পরিচালনা করা সম্ভব। এর মাধ্যমে দূর থেকে পর্যবেক্ষণ এবং কার্যকর সমন্বয় সাধনের মাধ্যমে দূরবর্তী স্থান থেকে স্বাস্থ্য পরামর্শ দেওয়া সম্ভব। এ ছাড়া এআই-ভিত্তিক স্ক্রিনিং সমাধান এবং পরিমাণগত বিশ্লেষণ পদ্ধতি ও সেবা হাসপাতালগুলোর রোগ নির্ণয় দক্ষতাকে আরও উন্নত করতে সহায়তা করবে।

গতকাল রাজধানীর মহাখালীতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্স সিস্টেম এবং এআই সমাধান হস্তান্তর করেন হুয়াওয়ে টেকনোলজিস (বাংলাদেশ) লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী ঝাং ঝেংজুন। এ সময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আলী নূর, হুয়াওয়ে টেকনোলজিস (বাংলাদেশ) লিমিটেডের এন্টারপ্রাইজ ভিপি পিটারসহ অন্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা সেখানে উপস্থিত ছিলেন। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যোগ দেন তথ্য ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ।

হুয়াওয়ের কর্মকর্তারা ভিডিও কনফারেন্সিং প্রযুক্তি হস্তান্তর করেন। ছবি: হুয়াওয়ের সৌজন্যেকরোনাভাইরাস মোকাবিলায় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়কে ভিডিও কনফারেন্স সিস্টেম এবং এআই সমাধান দিচ্ছে হুয়াওয়ে টেকনোলজিস (বাংলাদেশ) লিমিটেড। তাদের দাবি, এ উন্নত প্রযুক্তি কাজে লাগিয়ে সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলোর মধ্যে সমন্বয়ের পাশাপাশি দূরবর্তী যোগাযোগ এবং ‘কোভিড-১৯’ শনাক্তে কার্যকর শনাক্তকরণ প্রক্রিয়া পরিচালনা করা যাবে। গতকাল বুধবার হুয়াওয়ে এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

হুয়াওয়ে বলছে, তাদের ভিডিও কনফারেন্স সিস্টেমটি ফোর-কে ভিডিও প্রযুক্তির ওপর ভিত্তি করে বিভিন্ন ক্ষেত্র ও প্রেক্ষাপটে বুদ্ধিবৃত্তিক সমাধান দিতে সক্ষম। এর সাহায্যে করোনাভাইরাসের মতো মহামারির প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রম পরিচালনা করা সম্ভব। এর মাধ্যমে দূর থেকে পর্যবেক্ষণ এবং কার্যকর সমন্বয় সাধনের মাধ্যমে দূরবর্তী স্থান থেকে স্বাস্থ্য পরামর্শ দেওয়া সম্ভব। এ ছাড়া এআই-ভিত্তিক স্ক্রিনিং সমাধান এবং পরিমাণগত বিশ্লেষণ পদ্ধতি ও সেবা হাসপাতালগুলোর রোগ নির্ণয় দক্ষতাকে আরও উন্নত করতে সহায়তা করবে।

গতকাল রাজধানীর মহাখালীতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্স সিস্টেম এবং এআই সমাধান হস্তান্তর করেন হুয়াওয়ে টেকনোলজিস (বাংলাদেশ) লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী ঝাং ঝেংজুন। এ সময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আলী নূর, হুয়াওয়ে টেকনোলজিস (বাংলাদেশ) লিমিটেডের এন্টারপ্রাইজ ভিপি পিটারসহ অন্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা সেখানে উপস্থিত ছিলেন। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যোগ দেন তথ্য ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ।

আরো পড়ুন

১৮ ওয়াটের কুইক চার্জিং, এআই কোয়াড ক্যামেরা নিয়ে বাজারে রিয়েলমি সি১৫

স্মার্টফোন বাজারে এখন রিয়েলমির জয়জয়কার। আকর্ষণীয় দামে সেরা হার্ডওয়্যারের সঙ্গে অত্যাধুনিক ফিচারে রিয়েলমির স্মার্টফোনগুলো তরুণদের …