শনিবার, ১২ জুন ২০২১
হোম » বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি » বিল গেটসের সঙ্গে বিচ্ছেদ মেলিন্ডার!

বিল গেটসের সঙ্গে বিচ্ছেদ মেলিন্ডার!

একদিকে মাইক্রোসফটে নিজের অধীনস্ত নারীসঙ্গ আলোচনায় এসেছে অন্যদিকে কুখ্যাত যৌন নিপীড়ক জেফ্রে এপস্টেইনের সঙ্গে তার সম্পর্ক এক অস্বস্তিকর অবস্থায় ফেলেছিল মেলিন্ডাকে বিচ্ছেদ ঘোষণার অনেক আগেই মাইক্রোসফট প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটসের আচরণ প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছিল বিচ্ছেদের ঘোষণা দেয়া তার স্ত্রী মেলিন্ডা ফ্রেঞ্চ গেটসের।  কিন্তু তার কথায় কান দেননি বিল গেটস। ২০১৯ সালের অক্টোবরে জেফ্রে এপস্টেইনের সঙ্গে বিল গেটসের সম্পর্কের তথ্য প্রকাশ্যে আসে। এতে আরো অস্বস্তিকর অবস্থায় পড়েন মেলিন্ডা। ফলে তিনি বিচ্ছেদ বিষয়ক আইনজীবী নিয়োগ দেন।

তারই ধারাবাহিকতায় এ মাসে বিচ্ছেদ ঘোষণা দিয়েছেন বিশ্বের বহুল আলোচিত, সুপরিচিত এই দম্পতি। তবে বিল গেটসের আচরণ সম্পর্কে মেলিন্ডা কতটুকু জেনেছিলেন অথবা প্রকৃতপক্ষে কি নিয়ে তারা বিচ্ছেদে গেলেন তা এখনও পরিষ্কার করে বলেননি তারা। ফলে এসব নিয়ে প্রতিদিন নানা রকম তথ্য বেরুচ্ছে পত্রপত্রিকায়।

অনলাইন নিউ ইয়র্ক টাইমস একটি প্রতিবেদনে লিখেছে, ২০১৮ সালে দীর্ঘ দিনের ম্যানেজার মাইকেল লারসনের সঙ্গে বিল গেটসের আগে থেকে অঘোষিত যৌন হয়রানির অভিযোগের বিষয় জানতে পারেন মেলিন্ডা। এ বিষয়ে জানেন এমন দু’জন ব্যক্তি বলেছেন, ওই যৌন হয়রানির বিষয়টি গোপনীয়তার সঙ্গে মিটমাট করার চেষ্টা করেছিলেন বিল গেটস। এ কথা জানতে পেরে বাইরে থেকে বিষয়টি তদন্ত করানোর উদ্যোগ নেন মেলিন্ডা। কিন্তু অর্থ বিষয়ক ম্যানেজার পদে মাইকেল লারসন অব্যাহত থেকে যান। কিছু ক্ষেত্রে মাইক্রোসফটে এবং বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশনে কর্মরত নারীদের দিকে দৃষ্টি পড়েছিল বিল গেটসের। এর প্রেক্ষিতে ২০১৯ সালে মাইক্রোসফটের পরিচালক পরিষদ ২০০০ সালে কোম্পানিতে কর্মরত একজনের সঙ্গে অন্তরঙ্গ সম্পর্ক থাকার বিষয়ে তদন্ত করে। রোববার মাইক্রোসফটের মুখপাত্র ফ্রাঙ্ক এক্স শ এ কথা বলেছেন। এ অভিযোগ তদন্তের জন্য পরিচালনা পরিষদ একটি আইনী প্রতিষ্ঠানকে নিয়োগ করে। পরের বছরেই পরিচালনা পরিষদ থেকে পদত্যাগ করেন বিল গেটস। ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল এমন ২০০০ ঘটনার উল্লেখ করেছে এবং পরিচালনা পরিষদ তা তদন্ত করেছে। বিল গেটসের এক মুখপাত্র ব্রিজিত আর্নল্ড বলেছেন, ২০ বছর আগে বিল গেটসের সঙ্গে এমন এক সম্পর্ক ছিল।

তার সঙ্গে ২০১১ সালে পরিচয় হয় বিল গেটসের। মেয়েদের যৌনতার ফাঁদে ফেলে পাচারের গুরুত্বর অভিযোগ আছে এই এপস্টেইনের বিরুদ্ধে। তার বিরুদ্ধে পতিতালয় চালানোর অভিযোগ আছে। তার সঙ্গে বিল গেটসের সম্পর্ক নিয়ে অস্বস্তি শুরু হয় মেলিন্ডার মধ্যে। সেখান থেকেই বিচ্ছেদের ঘোষণা আসে। তাদের বিচ্ছেদের ঘোষণা বিশ্বজুড়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করে। কারণ, এই দম্পতির রয়েছে যেমন সামাজিক মর্যাদা, তেমনি আছে আর্থিক দাপট। তারা সমাজহিতৈষী হিসেবে প্রভূত খ্যাতি কুড়িয়েছেন। তা ছাড়া কমপক্ষে ১৩০০০ কোটি ডলারের সম্পদ আছে, যা তাদের মধ্যে এখন বন্টন হবে। বিল গেটস এবং মেলিন্ডা সাক্ষাত হয়েছিল মাইক্রোসফটে কাজ করার সুবাদে। টেকনিক্যাল দিক দিয়ে বিল গেটস ছিলেন মেলিন্ডার বস। মেলিন্ডা গেটসের তখন নাম ছিল মেলিন্ডা ফ্রেঞ্চ। কলেজ থেকে গ্রাজুয়েশন সম্পন্ন করে তিনি ১৯৮৭ সালে মাইক্রোসফটের একজন প্রোডাক্ট ম্যানেজার হিসেবে কাজ শুরু করেন। কাজের ফাঁকে মেলিন্ডার সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তোলেন বিল গেটস। তার ফল হিসেবে সম্পর্ক আরো গাঢ় হয়। তারা দীর্ঘ প্রায় ৭ বছর চুটিয়ে প্রেমপর্বের পর বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন ১৯৯৪ সালে। এরপর মেলিন্ডা ফ্রেঞ্চ হয়ে যান মেলিন্ডা গেটস।

আরো পড়ুন

ব্রিটেনের রানি এলিজাবেথের ৯৫তম জন্মদিনে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা

ব্রিটেনের রানি এলিজাবেথের ৯৫তম জন্মদিনে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি । মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী …