রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০২০
বছরে একাধিকবার বিদ্যুৎ ও জ্বালানির দাম বাড়ানো যাবে

বছরে একাধিকবার বিদ্যুৎ ও জ্বালানির দাম বাড়ানো যাবে

বছরে একাধিকবার বিদ্যুৎ ও জ্বালানির দাম বাড়ানোর  সুযোগ রেখে ‘বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (সংশোধন) বিল-২০২০’ পাস হয়েছে। বুধবার (১৮ নভেম্বর) রাতে জাতীয় সংসদে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিলটি পাসের প্রস্তাব উত্থাপন করলে কণ্ঠভোটে তা পাস হয়।

গত ২৩ জুন জাতীয় সংসদে বিলটি উত্থাপন করা হয়। ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট মো. ফজলে রাব্বী মিয়া অধিবেশনের সভাপতিত্ব করেন।

বিলে বলা হয়েছে, কমিশন কর্তৃক নির্ধারিত ট্যারিফ কোনো অর্থবছরে কমিশনের একক বা পৃথক পৃথক আদেশ দ্বারা, প্রয়োজন অনুসারে এক বা একাধিকবার পরিবর্তন করতে পারবে। ওই বিধান অনুযায়ী নতুন আইন কার্যকর হলে এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন বছরে এক বা একাধিকবার বিদ্যুৎ, গ্যাস, ডিজেল, পেট্রোলসহ জ্বালানির দাম পরিবর্তন করতে পারবে।

বিলের উদ্দেশ্য ও কারণ সম্পর্কে প্রতিমন্ত্রী বলেন, সম্প্রতি জ্বালানি সরবরাহ কাঠামোতে দ্রুত পরিবর্তন ঘটায় আইনটি সংশোধনের প্রয়োজনীয়তা দেখা দিয়েছে।

অধিবেশনে বিলটি পাসের আগে জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য মো. ফখরুল ইমাম, শামীম হায়দার পাটোয়ারী ও পীর ফজলুর রহমান বিএনপির ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা বিলের বিরোধিতা করে বিলটি জনমত যাচাই ও বাছাই কমিটিতে পাঠানোর প্রস্তাব দেন। তবে সে প্রস্তাব কণ্ঠভোটে নাকচ হয়ে যায়।

২০০৩ সালে প্রণীত বিদ্যমান আইনের বিধান ছিল- কমিশনের নির্ধারিত ট্যারিফ কোনো অর্থবছরে একবারের বেশি পরিবর্তন করা যাবে না, যদি না জ্বালানি মূল্যের পরিবর্তনসহ অন্য কোনো পরিবর্তন ঘটে। তা পরিবর্তন করে একাধিকবার দাম পরিবর্তনের সুযোগ রেখে আইন সংশোধনের খসড়া গত বছরের ডিসেম্বর মাসে মন্ত্রিসভায় অনুমোদন করা হয়।

আরো পড়ুন

বংশী নদীর বালুতে প্রভাবশালীদের থাবা, বিলীন হচ্ছে ফসলি জমি

বংশী নদীর বালুতে প্রভাবশালীদের থাবা, বিলীন হচ্ছে ফসলি জমি

ঢাকার ধামরাইয়ে বংশী নদীতে অবৈধ ড্রেজার বসিয়ে বালু উত্তোলন করে বিক্রি করে আসছে এক শ্রেণীর …