জাতীয়লিড নিউজসর্বশেষ সংবাদ

করোনায় শনাক্ত বাড়লেও মৃত্যু কমেছে

করোনায় দেশে ৪০ মৃত্যু, শনাক্ত ১১৪০

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনা ভাইরাসে গত চব্বিশ ঘণ্টায় দেশে আরও ৪১ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত একদিনে নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে ১ হাজার ৮২২ জন।

বৃহস্পতিবার (৬ মে) স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের সরকারি ও বেসরকারি ল্যাবরেটরিতে ২১ হাজার ৮২২টি নমুনা সংগ্রহ এবং ২১ হাজার ৫৮৫টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এরমধ্যে পজিটিভ রিপোর্ট আসে এক হাজার ৮২২ জন।

নমুনা পরীক্ষায় শনাক্তের হার ৮ দশমিক ৪৪ শতাংশ। গত বছরের ৮ মার্চ প্রথম রোগী শনাক্ত হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত শনাক্তের মোট হার ১৩ দশমিক ৭৮ শতাংশ।

এদিকে, একদিনে করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন তিন হাজার ৬৯৮ জন। এ নিয়ে দেশে করোনা থেকে মোট সুস্থ হলেন মোট সাত লাখ দুই হাজার ১৬৩ জন। গত ঘণ্টায় সুস্থতার হার ৯১ দশমিক ২৯ শতাংশ। ২৪ ঘণ্টায় মৃতদের মধ্যে শূন্য থেকে চল্লিশোর্ধ্ব দুইজন, পঞ্চাশোর্ধ্ব ১৫ জন এবং ষাটোর্ধ্ব ২৪ জন রয়েছেন।

বিভাগওয়ারি হিসাবে মৃতদের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ২০ জন, চট্টগ্রামে ১৪ জন, রাজশাহীতে দুইজন, খুলনায় একজন, বরিশালে দুইজন এবং সিলেটে দুইজনের মৃত্যু হয়।

গত বছরের ৮ মার্চ দেশে প্রথম তিনজনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ দেশে এ ভাইরাসে আক্রান্ত প্রথম একজনের মৃত্যু হয়।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে প্রথম ৩ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ দেশে এ ভাইরাসে আক্রান্ত প্রথম একজনের মৃত্যু হয়।

 

 

গত বছরের ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনা শনাক্তের কথা জানায় সরকার। দুই মাস পর মে মাসের মাঝামাঝি থেকে সংক্রমণ বাড়তে শুরু করে। আগস্টের তৃতীয় সপ্তাহ পর্যন্ত শনাক্তের হার ২০ শতাংশের ওপরে ছিল।

এ বছর মার্চে শুরু হয়েছে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ। প্রথম ঢেউয়ের চেয়ে এবার সংক্রমণ বেশি তীব্র। মধ্যে কয়েক মাস ধরে শনাক্তের চেয়ে সুস্থ বেশি হওয়ায় দেশে চিকিৎসাধীন রোগীর সংখ্যা কমে আসছিল। কিন্তু মার্চ থেকে চিকিৎসাধীন রোগীর সংখ্যাও আবার বাড়তে শুরু করেছে।