নেশার টাকার জন্য স্ত্রীকে ৭ বন্ধুকে দিয়ে ধর্ষণ! আপডেট: 15-09-2017   
একজন মাদকাসক্ত একটি পরিবারের জন্য রীতিমতো অভিশাপ। মাদক একজন মাদকাসক্তকে হিতাহিত জ্ঞানশূন্য করে দেয়। মা-বাবাকে হত্যা থেকে সন্তান বিক্রি- এমন বহু কাণ্ড ঘটিয়েছে মাদকাসক্তরা।তবে এবার ভারতের পাঞ্জাবের লুধিয়ানায় যা ঘটেছে প্রাগৈতিহাসিক যুগের অন্ধকারকেও তা হার মানিয়েছে। নেশার টাকা জোগাড় করতে সাত বন্ধুকে দিয়ে স্ত্রীকে গণধর্ষণ করানোর অভিযোগ উঠেছে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। জানা গেছে, লুধিয়ানার ঢাকা গ্রামের বাসিন্দা ওই ব্যক্তি দীর্ঘদিন ধরেই নেশায় আসক্ত। একটা সময়ে দিনমজুরির কাজ করলেও, এখন তেমন কোনো কাজ করেন না। অথচ, দিনরাত নেশায় বুঁদ হয়ে থাকেন।নেশার টাকা জোগাড় করতেই বন্ধুদের এক শর্তে রাজি হয়ে যায় ওই মাদকাসক্ত। এক রাতে ২২ বছরের স্ত্রী ঘরে একা থাকাকালীন ওই ব্যক্তির নেশার সঙ্গী সাত বন্ধুকে সেখানে ঢুকিয়ে দেয় বলে অভিযোগ। এরপর বাইরে থেকে দরজা বন্ধ করে দেয় স্বামী। সাতজন মিলে ওই মহিলাকে গণধর্ষণ করে বলে অভিযোগ। এখানেই শেষ নয়, গোটা ঘটনার ভিডিও মোবাইলে তুলে রাখে তারা। এরপর থেকেই ওই অভিযুক্ত সাতজন নির্যাতিতার স্বামীকে ব্ল্যাকমেল করতে থাকে। নির্যাতিতার অভিযোগ, এভাবে একাধিকবার নির্যাতনের শিকার হয়েছিলেন তিনি।অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে অবশেষে লুধিয়ানা পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেন তিনি। গ্রেফতার করা হয় অভিযুক্তদের। ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৬ ধারা অনুসারে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।